ঢাকা২০ এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
  1. ! Без рубрики
  2. Echt Geld Casino
  3. test2
  4. অর্থনীতি
  5. আন্তর্জাতিক
  6. আরো
  7. এক্সক্লুসিভ
  8. খেলাধুলা
  9. জাতীয়
  10. তথ্য প্রযুক্তি
  11. দেশজুড়ে
  12. প্রেস বিজ্ঞপ্তি
  13. বাণিজ্য
  14. বিনোদন
  15. মতামত

ইফতার ও সেহরির আদর্শ খাবার

admin
মার্চ ৯, ২০২৪ ১:২৫ অপরাহ্ণ
Link Copied!

ডেস্ক:পবিত্র মাহে রমজান মাস সারা বিশ্বের মুসলমানদের জন্য একটি মাস। এই মাসে সাওম পালন করেন মুসলমানরা। সূর্যোদয় থেকে সূর্যাস্ত পর্যন্ত না খেয়ে রোজা পালন করা হয়। সূর্যোদয় আগে সেহরি খাওয়া হয়। তারপর সূর্যাস্তের আগ পর্যন্ত আর কিছু খাওয়া যাবে না। সূর্যাস্তের পর ইফতারের মাধ্যমে রোজা পূর্ণ করা হয়। দীর্ঘ সময় না খেয়ে থাকার কারণে অনেকে দুর্বল হয়ে পড়েন। তাই এক্ষেত্রে সেহরি ও ইফতারের আদর্শ খাবার খাওয়া জরুরি। তাহলে রোজা রেখেও কোনো ধরনের সমস্যা দেখা দিবে না।
ইফতারের আদর্শ খাবার :
ইফতারের সময় অতিরিক্ত ভাজা, মিষ্টি বা নোনতা জিনিস এড়িয়ে চলুন।
খেজুর খেয়ে রোজা ভাঙুন। ইফতারের সময়ও ফাইবার সমৃদ্ধ জিনিস খান।
অতিরিক্ত মাংস এবং মশলাযুক্ত খাবার খাবেন না। এতে বদহজম এবং গ্যাসের সমস্যা হতে পারে।
সারাদিনের দুর্বলতা কাটাতে ফলের রস খেতে পারেন।
সালাদ অবশ্যই রাখুন। পুষ্টির দেওয়ার সঙ্গে সালাদ শরীরকে হাইড্রেটেড রাখতেও সাহায্য করে।
রাতের খাবারে ভাত পরিমিত খান। ভাত ও রুটি মিশিয়ে খাওয়াই শ্রেয়।
রাতে দই খাবেন না।
খাওয়ার পরেই ঘুমাতে যাবেন না। আধ ঘণ্টা হাঁটুন। খাওয়ার অন্তত এক ঘণ্টা পর ঘুমাবেন।
সেহরির আদর্শ খাবার :
সেহরির সময় হালকা খাবার খান। খাদ্যতালিকায় তেল-মশলা ছেড়ে স্বাস্থ্যকর জিনিস রাখুন।
খাদ্যতালিকায় ফাইবার সমৃদ্ধ খাবার অন্তর্ভুক্ত করুন। আপেল, নাশপাতি, মটরশুটি, সবুজ সবজি, ভুট্টায় পর্যাপ্ত পরিমাণে ফাইবার রয়েছে। ফাইবার দীর্ঘক্ষণ পেট ভরে রাখে। এতে সারাদিন কাজের শক্তি পাবেন।
সেহরির সময় মুসুর ডাল এবং দই খাবেন। দই হজমশক্তি বাড়ায় এবং পর্যাপ্ত পরিমাণে ক্যালসিয়ামের জোগান দেয়। এছাড়াও সমস্ত ধরণের ডাল সারাদিনের জন্য পর্যাপ্ত প্রোটিন সরবরাহ করে।
কাঁচা পনির বা দুধ খেলে তা সারাদিন উদ্যমী রাখতে সাহায্য করবে। এর প্রোটিন দীর্ঘক্ষণ পেট ভরে রাখে। সেহরি খাওয়ার পর এক গ্লাস দুধ বা চার-পাঁচ টুকরো পনির খান।
সেহরি এবং ইফতার উভয় সময়েই শুকনো খেজুর খাওয়ার খেতে পারেন। এই ড্রাই ফ্রুট দীর্ঘক্ষণ পেট ভরে রাখে। এতে খিদে পায় না। খেজুর ছাড়া কাজু, বাদাম, কিশমিশ ইত্যাদি খেতে পারেন।
সেহরিতে খাওয়ার আধ ঘণ্টা আগে এক গ্লাস জল খেয়ে নিন। খাওয়ার আধা ঘণ্টা পর আবার জল খাবেন। খাওয়ার আগে খুব বেশি জল খাবেন না। পেট ভরে গেলে বেশি খেতে পারবেন না। পরে খিদে লাগবে।
সেহরির খাবার যেন হালকা হয়। কারণ, খুব বেশি খেলে বদহজম হতে পারে।

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।