ঢাকা২২ এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
  1. ! Без рубрики
  2. Echt Geld Casino
  3. test2
  4. অর্থনীতি
  5. আন্তর্জাতিক
  6. আরো
  7. এক্সক্লুসিভ
  8. খেলাধুলা
  9. জাতীয়
  10. তথ্য প্রযুক্তি
  11. দেশজুড়ে
  12. প্রেস বিজ্ঞপ্তি
  13. বাণিজ্য
  14. বিনোদন
  15. মতামত
আজকের সর্বশেষ সবখবর

নির্বাচনোত্তর সহিংসতা ও অস্থিতিশীল পরিস্থিতি

admin
মার্চ ১৫, ২০২৪ ১১:৩৫ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

উন্নয়নশীল বিশ্বে রাজনৈতিক অঙ্গনে সচরাচর উত্তপ্ত পরিস্থিতি পরিলক্ষিত হইয়া থাকে। রাজনৈতিক অস্থিরতা এইখানে কয়েক গুণ বাড়িয়া যায়, বিশেষত নির্বাচনের পূর্বে ও পরে। দমনপীড়ন, ধরপাকড় এবং অত্যাচার-অনাচারে দিশাহারা হইয়া পড়েন বিরোধী দলের বা প্রতিদ্বন্দ্বী নেতাকর্মীরা। নিকট অতীতে প্রায় সকল নির্বাচনেই এই প্রবণতা লক্ষ করা গিয়াছে। সর্বশেষ নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁওয়ে নির্বাচনি সহিংসতায় এক যুবকের মৃত্যুর ঘটনাকে কেন্দ্র করিয়া গ্রেফতার আতঙ্কে পুরুষশূন্য হইয়া পড়িয়াছে জেলার পিরোজপুর ইউনিয়নের দুধঘাটা গ্রাম। গ্রেফতার এড়াইতে গ্রামবাসী পালাইয়া বেড়াইতেছেন বলিয়া গণমাধ্যমে খবর প্রকাশিত হইয়াছে। ঐ ঘটনায় দুইটি মামলা হওয়ার পরই মূলত এহেন অবস্থার সৃষ্টি হইয়াছে। এই সুযোগে যাহারা ক্ষমতাবান তাহারা প্রতিদ্বন্দ্বী ও তাহার সমর্থকদের নাম পুলিশের নিকট দিয়া হয়রানি করিতেছ.

প্রশ্ন হইল, নির্বাচনের পূর্বে কিংবা পরে প্রতিপক্ষ নেতাকর্মীদের এইভাবে ঘরছাড়া, এলাকাছাড়া হইতে হয় কেন? কাহারা এই ক্ষেত্রে কলকাঠি নাড়েন? দেশে আইনকানুন এবং বিধিব্যবস্থা থাকিবার পরও কাহাদের দৌরাত্ম্যপনায় ভীতিকর পরিবেশের কারণে পলাইয়া বেড়াইতে বাধ্য হইতেছে লোকজন? অনুরূপ ঘটনা ঘটিয়াছে এইবারের দ্বাদশ জাতীয় সংসদের ভোটের সময়ও। তথাকথিত মিথ্যা, সাজানো ও ভিত্তিহীন মামলায় প্রতিপক্ষের নেতাকর্মীদের এলাকাছাড়া করা হইয়াছে। তাহাদের অনেকে এখনো নিজ এলাকায় যাইতে পারিতেছেন না। যাহারা নির্বাচনি প্রচার-প্রচারণায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করিয়া থাকেন, তাহাদের যদি এইভাবে গ্রেফতার বা হয়রানি করা হয়, তাহা হইলে তাহাতে যে প্রভাবশালী মহলের সুবিধা হয় তাহা বুঝিতে অসুবিধা হয় না। ক্ষেত্রবিশেষে তাহাদের বিরুদ্ধে কয়েক বত্সরের পুরাতন মামলাগুলিও পুনরুজ্জীবিত করা হয়। কয়েক জনকে গ্রেফতারের পর অন্যরা তখন ভয় ও আতঙ্কে এমনিতেই নিরুদ্দেশ হইয়া যান বা নির্বাচনি কার্যক্রমে নিষ্ক্রিয় থাকেন। তাহাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা চার্জশিট দেওয়া হয়। ফলে জেলজুলুমের ভয়ে ভীতসন্ত্রস্ত নেতাকর্মীরা অন্যত্র গা ঢাকা দিয়া থাকিতে বাধ্য হন। ওসিসহ স্থানীয় পুলিশ-প্রশাসনকে ম্যানেজ করিয়াই যে এই ধরনের অপকর্ম চালানো হইয়া থাকে, এই কথা আমরা পূর্বেও বহু বার বলিয়াছি। এমনও ঘটে, নির্বাচনের কয়েক মাস পূর্ব হইতেই সম্ভাব্য প্রার্থীর নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে ধরপাকড় শুরু হইয়া যায়। এই অপকৌশল আর যাহাই হউক, ইহা কোনো গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ার মধ্যে পড়ে না। বরং ইহা গণতন্ত্রের নামে অগণতন্ত্রের শামিল।

বর্তমানে ক্ষমতাসীন দলে যাহারা অনুপ্রবেশকারী ও স্বাধীনতাবিরোধী তাহারা সর্বক্ষেত্রে সীমা লঙ্ঘন করিয়া চলিয়াছেন। এই সকল নেতা-পাতিনেতাদের দৌরাত্ম্যে সংশ্লিষ্ট এলাকার মানুষ অতিষ্ঠ। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ও প্রশাসনকে তাহারা নানাভাবে ম্যানেজ করিয়া ফেলিয়াছেন। দৃশ্যত তাহাদের হুকুমতেই তাহারা চলেন। ইহার ফলে সমাজ ও রাষ্ট্রীয় জীবন ক্রমবর্ধমানভাবে অস্থিতিশীল হইয়া উঠিতেছে, ইহা কি আমরা সঠিকভাবে উপলব্ধি করিতে পারিতেছি? নরসিংদীতে ক্ষমতাসীন দলের নেতাকর্মীদের মধ্যে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করিয়া কী ধরনের পরিস্থিতির অবতারণা ঘটিয়াছে, তাহার দিকে দৃষ্টি দিলেও ইহার সত্যাসত্য খুঁজিয়া পাওয়া যাইবে। এমনও লক্ষ করা গিয়াছে যে, যাহারা সামাজিক নিরাপত্তার সুবিধাভোগী, তাহাদের জাতীয় পরিচয়পত্র কবজা করিয়া তাহাদের নির্দিষ্ট প্রার্থীদের ভোট দিতে বাধ্য করা হইয়াছে। যাহারা এই সকল অপতত্পরতায় জড়িত, তাহারাই এখন নির্বাচনোত্তর সহিংসতা উসকাইয়া দিতেছে।

ক্ষমতাসীন দলের একশ্রেণির নেতাকর্মীর অন্যায়-অপরাধ-অপকর্ম, খামখেয়ালিপনা ও প্রভাবপ্রতিপত্তি দেশে ক্যানসারের ন্যায় ছড়াইয়া পড়িয়াছে। তাহারা নানাবিধ অবৈধ ব্যবসায় নিজেদের নাম লিখাইয়া প্রচুর অর্থের মালিক বনিয়া গিয়া আজ ধরাকে সরা জ্ঞান করিতেছে। গণতান্ত্রিক সমাজে ইহা কোনোভাবেই কাম্য নহে। সাধারণ ভোটার তথা জনগণ যখন শিক্ষাদীক্ষা ও আর্থিকভাবে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জন করিবে, তখন তাহারা ইহার বিরুদ্ধে প্রতিবাদমুখর না হইয়া পারিবে না। তখন হয়তো ইহার একটি বিহিত হইতে পারে। ততদিন আল্লাহর রহমত ছাড়া উন্নয়নশীল বিশ্বে বসবাস করাই যে কঠিন, তাহাতে কোনো সন্দেহ নাই।

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।