ঢাকা২০ এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
  1. ! Без рубрики
  2. Echt Geld Casino
  3. test2
  4. অর্থনীতি
  5. আন্তর্জাতিক
  6. আরো
  7. এক্সক্লুসিভ
  8. খেলাধুলা
  9. জাতীয়
  10. তথ্য প্রযুক্তি
  11. দেশজুড়ে
  12. প্রেস বিজ্ঞপ্তি
  13. বাণিজ্য
  14. বিনোদন
  15. মতামত

‘পপি’ মায়ের আত্মত্যাগ বৃথা যাবে না

admin
ডিসেম্বর ২০, ২০২৩ ৫:৫২ অপরাহ্ণ
Link Copied!

প্রফেসর ড. মো. রবিউল ইসলাম

 

পাকিস্তানিরা মুখের ভাষা কেড়ে নিতে বুলেটে ঝাঁঝরা করেছিল কতো বুক, রক্তাক্ত হয়েছিল পিচ ঢালা রাজপথ। সেটা ছিল পৃথিবীর বুকে হাজারো মায়ের বুকে পাহাড়সম আঘাত। সে আঘাতের ক্ষত থেকে ইতিহাস সৃষ্টি করে আজ আমরা বাঙালিরা অনবরত বাংলায় কথা বলি। একইভাবে একাত্তরে কতো মায়ের কোল থেকে সন্তান কেড়ে নিয়ে বুলেটে ক্ষত বিক্ষত করেছে ঘাতকরা। ত্রিশ লক্ষ শহীদের মায়ের বুক আজো ক্রন্দনরত। দুই লক্ষ মা বোনের সম্ভ্রম এখনো ইতিহাসের কালো অধ্যায়। ডিসেম্বর ১৪ এ কতো উজ্জ্বল নক্ষত্র মায়ের বুক থেকে উল্কার মতো খসে পড়েছিল, সেই জেনোসাইডের বিচার আজও আমরা পাইনি। তবু, বাঙালি থেমে ছিল না কখনো।

 

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের এক তর্জনীর ডাকে ছিনিয়ে এনেছিল স্বাধীনতা। লাল সবুজের পতাকা। বাঙালির পরিপূর্ণ মুক্তির পয়গামের পূর্বেই পাকিস্তানিদের প্রেতাত্মারা আবারও ‘বাংলাদেশ’ নামক মাকে কাঁদিয়েছিল। ১৯৭৫ এর সেই ভয়াল গর্ত থেকে স্বর্গের দূত হয়ে বাঙালির জীবনে আশীর্বাদ হয়ে আসেন জননেত্রী শেখ হাসিনা। রবীন্দ্রনাথের সোনার তরীর মতো বাংলাদেশিদের জন্য সম্ভাবনাময় ভবিষ্যৎ নিয়ে আসে শেখ হাসিনার নৌকাও। তাঁকেও ২১ আগস্ট বোমায় উড়িয়ে দিতে চেয়েছিলো পাকিস্তানের দোসররা। সেই বোমার স্প্লিনটারে অভ্যুত্থান ঘটে স্বাধীন বাংলাদেশের অর্থনৈতিক মুক্তির। সেই মুক্তির স্বাদ বিগত পনেরো বছর গ্রাম থেকে শহরের সব মানুষ ভোগ করছে।

 

স্থায়ী অর্থনৈতিক মুক্তি, ডিজিটাল বাংলাদেশ এবং স্মার্ট বাংলাদেশের কাণ্ডারি শেখ হাসিনার নৌকায় যাত্রী হবার জন্য যখন বাঙলার মানুষেরা ব্যস্ত, তখন সাম্প্রতিক কিছু লোমহর্ষক ঘটনা আবারও সুস্থ চিত্তকে নাড়া দিচ্ছে। যেমন পুলিশ পিটিয়ে হত্যা। যাত্রীসহ চলন্ত ও দাঁড়িয়ে থাকা বাসে আগুন। ট্রেনের লাইন কেটে যাত্রীসহ ট্রেন লাইনচ্যুত করা। মৃত্যুর মধ্যে যেন কী এক স্বর্গীয় আনন্দ উপভোগ করছে একদল কাপুরুষ। সর্বশেষ এমনই ঘটনা মঙ্গলবার তেজগাঁওয়ে ট্রেনে আগুন।

 

ভয়াবহ ওই ঘটনার পর পত্রিকার শিরোনাম দেখছি, আর শিউরে উঠিছি। নিজের কাছেই নিজেকে অপরাধী মনে হচ্ছে। প্রথম আলোর শিরোনাম ‘কী অপরাধে সব শেষ হলো জানি না, কারও কাছে বিচার চাইব না’; দৈনিক সমকালে ‘শিশু সন্তানকে বুকে জড়িয়েই পুড়ে মারা যান পপি’ এবং ঢাকা পোস্টের শিরনাম, ‘মৃত্যু নিশ্চিত জেনেও সন্তানকে বুকে জড়িয়েই পুড়ে মারা যান পপি’। মনে মনে খুব ভাবছি এই আমার দেশ? যারা কাজটি করলো তারাও তো কোন না কোন ভাবে আমার দেশের মানুষ? যে ভোটার তালিকায় আমার নাম সেই তালিকায়তো তাদেরও নাম। নিজেকে ক্ষমা করি কীভাবে?

 

এভাবেই, কিছু বিপদগামী গোষ্ঠী, ধর্ম ব্যবসায়ী ও পাকিস্তানি প্রেতাত্মা এদেশকে জিম্মি করতে চায় বছরের পর বছর। হাজারো ‘পপি’ মায়ের বুক খালি করেই তারা নিজেদের অসৎ উদ্দেশ্য হাসিল করতে চায়। কিন্তু, তারা জানে না এ জাতির মায়েরা বেগম রোকেয়ার মতো অটল, অবিচল। মায়েদের আঁচল যতই কান্নায় ভিজে যাক না কেন, তাঁরা দেশের প্রশ্নে, জনগণের কল্যাণের প্রশ্নে, সর্বদা আপোষহীন। জননেত্রী শেখ হাসিনার নৌকায় তাঁরা জীবনের সমস্ত মূলধন তুলে দিতেও কখনও কার্পণ্য করবে না। কারণ, তাঁরা জানেন এদেশ, এদেশের মাটি ও মানুষ কেবলই জননেত্রী শেখ হাসিনার কাছেই নিরাপদ। আমাদের মায়েরা জানেন মায়েদের আত্মত্যাগ বাঙালি সমাজে তথা নৌকায় সর্বদা সমুজ্জ্বল ।

 

হে জাতি, তোমার চোখ খোলো। দেখো, আজ কোন মানুষ উপোষ থাকে না। উত্তরে আর মঙ্গার ঢেউ আসে না। কৃষককে সার বা বীজের জন্য প্রাণ দিতে হয় না। দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকে রাজধানী আসতে ৫-৭ দিন লাগে না। খামারিদের গরুর লেজ ধরে রাতে ঘুমাতে হয় না। বিদ্যুতের জন্য মারামারি করতে হয় না। টাকা জমানোর জন্য ব্যাংকে ধরনা দিতে হয় না। একেবারে বয়স্ক মানুষটিও ফোনে কথা বলে খবর নেন নাতিপুতির। সব ডিজিটাল সুবিধা মানুষের দোরগোড়ায়। মাথাপিছু আয় বেড়েছে। জনগণের জান ও মালের নিরাপত্তা বেড়েছে। উন্নত, সমৃদ্ধ ও স্মার্ট যে বাংলাদেশের স্বপ্ন দেখাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তারই ধারাবাহিকতায় এরইমধ্যে পারমাণবিক চুল্লি পদ্মাসেতু, কর্ণফুলী টানেল, মেট্রোরেল, এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের মত উন্নয়নমূলক কাজ আমাদের দৃষ্টিগোচর হয়েছে। কাজেই, আসুন সকল অগ্নি সন্ত্রাস, জ্বালাও পোড়াও বয়কট করি এবং বাংলাদেশের টেকসই উন্নয়নের ধারায় শামিল হতে নৌকায় সহযাত্রী হই।

 

লেখক: অধ্যাপক, ফসল শারীরতত্ত্ব ও পরিবেশ বিভাগ, হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়।

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।