ঢাকা২৪ এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
  1. ! Без рубрики
  2. Echt Geld Casino
  3. test2
  4. অর্থনীতি
  5. আন্তর্জাতিক
  6. আরো
  7. এক্সক্লুসিভ
  8. খেলাধুলা
  9. জাতীয়
  10. তথ্য প্রযুক্তি
  11. দেশজুড়ে
  12. প্রেস বিজ্ঞপ্তি
  13. বাণিজ্য
  14. বিনোদন
  15. মতামত
আজকের সর্বশেষ সবখবর

মিঠামইনে পরকীয়ার জেরে মাছ ব্যবসায়ী খুন, পিতা-পুত্রসহ গ্রেপ্তার ৪

admin
জানুয়ারি ২৬, ২০২৪ ১০:৫২ অপরাহ্ণ
Link Copied!

কিশোরগঞ্জের মিঠামইনে পরকীয়ার জের ধরে প্রতিপক্ষের হামলায় মো. আব্দুল মালেক (৩৬) নামে এক মাছ ব্যবসায়ী নিহত হওয়ার ঘটনায় পিতা-পুত্র ও সহোদরসহ চার অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গ্রেপ্তারকৃতরা হচ্ছে, মো. হুমায়ুন (৩০), মো. ওসমান মিয়া (৬০), মো. সিরাজ মিয়া (৫৫) ও মো. নাদিফ মিয়া ওরফে নাদিম (২৩)।
বৃহস্পতিবার (২৫ জানুয়ারি) দিবাগত রাত থেকে শুক্রবার (২৬ জানুয়ারি) ভোররাত পর্যন্ত পার্শ্ববর্তী হবিগঞ্জ জেলার আজমিরীগঞ্জ উপজেলার রায়লা এবং মিঠামইন উপজেলার বৈরাটি ইউনিয়নের বাহেরচর গ্রামে সাঁড়াশি অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করে পুলিশ।
গ্রেপ্তারকৃতদের মধ্যে মো. হুমায়ুন উপজেলার কাটখাল ইউনিয়নের শান্তিপুর গ্রামের মো. ওসমান মিয়ার ছেলে, মো. ওসমান মিয়া ও মো. সিরাজ মিয়া একই গ্রামের মৃত আব্দুল খালেক মিয়ার ছেলে এবং মো. নাদিফ মিয়া ওরফে নাদিম গ্রামেরই মো. আব্দুল হামিদের ছেলে।
অন্যদিকে নিহত মো. আব্দুল মালেক শান্তিপুর গ্রামের মৃত আকবর আলীর ছেলে।
মিঠামইন থানার ওসি মো. আহসান হাবীব বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, নিহত মো. আব্দুল মালেকের স্ত্রী সাহেদা বেগম (৩৫) এর সাথে একই গ্রামের ও তার স্বামীর নামের নামে নাম আব্দুল মালেকের পরকীয়ার সম্পর্ক ছিলো। পরকীয়া প্রেমিক আব্দুল মালেক গ্রামের মো. ওসমান মিয়ার ছেলে। বেশ কিছুদিন ধরে সে সাহেদাকে বিয়ের জন্য চাপ দিলে সাহেদা স্বামীর সংসার ছেড়ে তাকে বিয়ে করতে অস্বীকৃতি জানায়।
এর জের ধরে গত মঙ্গলবার (২৩ জানুয়ারি) সকালে স্থানীয় একটি বাজারে সাহেদাকে পেয়ে পরকীয়া প্রেমিক আব্দুল মালেক তাকে মারপিট করে। স্ত্রীকে মারপিটের বিষয়টি জানতে পেরে স্বামী মো. আব্দুল মালেক এর প্রতিবাদ করেন এবং বিচার চেয়ে আব্দুল মালেকের পরিবারের কাছে নালিশ করেন। কিন্তু আব্দুল মালেকের পরিবারের লোকজন ঘটনার কোন সুরাহা না করে উল্টো মো. আব্দুল মালেককে গালমন্দ করে এবং হুমকি-ধামকি দিয়ে তাড়িয়ে দেন।
স্থানীয় লোকজনকে মো. আব্দুল মালেক বিষয়টি জানালে ক্ষিপ্ত হয়ে ওইদিন দুপুরে পরকীয়া প্রেমিক আব্দুল মালেক, তার পরিবারের লোকজন ও স্বজনেরা দেশীয় অস্ত্র নিয়ে মো. আব্দুল মালেকের বাড়িতে গিয়ে তার ওপর চড়াও হয়। এ সময় তাদের মারপিটে মো. আব্দুল মালেক গুরুতর আহত হলে তার স্ত্রী সাহেদা ও স্বজনেরা চিকিৎসার জন্য অটোরিকশায় করে কাটখাল বাজারে নেয়ার জন্য রওনা হন।
পথে অটোরিকশা আটকে হামলাকারীরা পুনরায় মো. আব্দুল মালেককে মারপিট করলে কাটখাল বাজারের পল্লী চিকিৎসক নূরুল আমিনের কাছে নিয়ে যাওয়ার পর তিনি তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
এ ঘটনায় নিহতের বড় ভাই মো. হামিদুর রহমান বাদী হয়ে বৃহস্পতিবার (২৫ জানুয়ারি) মিঠামইন থানায় ১২ জনের নামোল্লেখ ও অজ্ঞাত ৩/৪ জনকে আসামি করে মামলা (নং-০৬, তারিখ- ২৫/০১/২০২৪ খ্রি.) দায়ের করেন।
এদিকে পুলিশ জানায়, মামলা দায়েরের পর গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মিঠামইন থানার ওসি মো. আহসান হাবীব ও মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা কাটখাল তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ পুলিশ পরিদর্শক মুহাম্মদ শাহিদুল ইসলামের নেতৃত্বে পুলিশ বৃহস্পতিবার (২৫ জানুয়ারি) দিবাগত রাত সোয়া ৯টার দিকে হবিগঞ্জ জেলার আজমিরীগঞ্জ উপজেলার রায়লা গ্রামে স্থানীয় থানা পুলিশের সহযোগিতায় অভিযান চালিয়ে এজাহারনামীয় আসামি মো. হুমায়ুন ও তার পিতা মো. ওসমান মিয়াকে গ্রেপ্তার করে।
পরে শুক্রবার (২৬ জানুয়ারি) ভোররাত আড়াইটার দিকে মিঠামইন উপজেলার বৈরাটি ইউনিয়নের বাহেরচর গ্রামে অভিযান চালিয়ে মো. সিরাজ মিয়া ও মো. নাদিফ মিয়া ওরফে নাদিমকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।
শুক্রবার (২৬ জানুয়ারি) তাদেরকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।