ঢাকা২০ মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
  1. ! Без рубрики
  2. Echt Geld Casino
  3. test2
  4. অপরাধ
  5. অর্থনীতি
  6. আন্তর্জাতিক
  7. আরো
  8. এক্সক্লুসিভ
  9. খেলাধুলা
  10. জাতীয়
  11. তথ্য প্রযুক্তি
  12. দেশজুড়ে
  13. প্রেস বিজ্ঞপ্তি
  14. বাণিজ্য
  15. বিনোদন

সাকিব-মাহমুদউল্লাহকে ‘উপহার’ দিতে চান শান্তরা

admin
মে ১৬, ২০২৪ ১১:১১ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

দৈ. কি.ডেস্ক : সবশেষ ওয়ানডে বিশ্বকাপের আগে দলের অফিসিয়াল ফটো সেশনে উপস্থিত ছিলেন না সাকিব আল হাসান। এ নিয়ে আলোচনা-সমালোচনা কম হয়নি। তবে গতকাল টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ফটো সেশনে সরব উপস্থিতি দেখা গেছে সাকিবের। ধূসর  ব্লেজার আর আকাশি রংয়ের শার্ট টাই পরে অধিনায়ক শান্তর সঙ্গে সেই সময় উপস্থিত ছিলেন বাকি ক্রিকেটাররাও। সেই সময় উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনও।  গতকাল মধ্য রাতে যুক্তরাষ্ট্র-ওয়েস্ট ইন্ডিজে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে অংশ নিতে দেশ ছেড়েছে বাংলাদেশ দল। তারুণ্য নির্ভর এই দলে অন্যতম সদস্য দেশের ক্রিকেটের দুই অভিজ্ঞ ক্রিকেটার মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ও সাকিব। তরুণ অধিনায়ক শান্তর সঙ্গে ফটো সেশনে গল্পে মেতে ছিলেন দলের দুই সিনিয়র। আলোচনা গুঞ্জন রয়েছে দু’জনই এই বিশ্বকাপের পর যেতে পারেন অবসরে। তবে সেটি হোক বা না হোক দেশ ছাড়ার আগে সংবাদ সম্মেলনে টাইগার অধিনায়ক শান্ত জানালেন এই বিশ্বকাপে দুই সিনিয়রকে তারা দারুণ কিছু উপহার দিতে চান।

তাদের জন্য এই আসরকে করে রাখতে চান স্মরণীয়! তিনি বলেন, ‘জানি না, এটা তাদের শেষ বিশ্বকাপ কি না। এটা ধারণা। তবে আমি এই বিষয়ে কিছুই জানি না। তারা এত লম্বা সময় ধরে খেলছেন, তরুণ ক্রিকেটার আমরা যারা আছি, তারা অবশ্যই চেষ্টা করব তাদেরকে ভালো স্মৃতি উপহার দিতে। ভালো একটি বিশ্বকাপ শেষ করে আমরা তাদেরকে উপহার দিলাম অবশ্যই আমাদের তরুণদের দায়িত্ব এটি। সবার মধ্যে এই ব্যাপারটা অবশ্যই থাকে।’

সবশেষ ভারতে ওয়ানডে বিশ্বকাপে সাকিব আল হাসান ছিলেন অধিনায়ক। তবে তার হাত বদলে দলকে তিন ফরম্যাটেই নেতৃত্ব দিচ্ছেন শান্ত। অধিনায়ক হিসেবে শান্তর এটি প্রথম বিশ্বকাপ। কিন্তু খেলোয়াড় হিসেবে সাকিব ও মাহমুদউল্লাহর জন্য হতে পারে বিশ্বকাপের শেষ আসর। ২০০৭ সালে টি-টোয়েন্টির প্রথম বিশ্ব আসর থেকে শুরু করে প্রতিটিতেই ছিল সাকিবের উপস্থিতি। সাকিব ছাড়া সবকটি বিশ্বকাপে অংশগ্রহণ করতে যাওয়া ক্রিকেটার আছেন আর শুধু রোহিত শর্মা। সাকিব ২০০৯ থেকে ২০২৩ পর্যন্ত দেশের হয়ে ৩৯ টি-টোয়েন্টি ম্যাচে নেতৃত্ব দিয়েছেন। বিশ্বকাপে অধিনায়ক হিসেবে দলকে নেতৃত্ব দিয়েছেন ৭ ম্যাচে। অন্যদিকে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ দেশের ২০১৮ থেকে ২০২২ পর্যন্ত ৪৩ ম্যাচে টি-টোয়েন্টি দলকে নেতৃত্ব দিয়েছেন।  রোহিত ও সাকিবের পাশে থাকতে পারত মাহমুদউল্লাহর নামও। ২০০৭ থেকে টানা সাতটি বিশ্বকাপ তিনি খেলেছেন। ২০২১ আসরে দলের অধিনায়কও ছিলেন। তবে ২০২২ আসরে বাদ পড়ে যান দল থেকে। বয়স ৪০ ছুঁই ছুঁই  দেশের দুই ক্রিকেটার ২০২৬ বিশ্বকাপে থাকবেন কি না, সংশয়টা আছে।

বলার অপেক্ষা রাখে না শান্তর নেতৃত্বে তারুণ নির্ভর এই দলের ভারসাম্য ধরে রাখতে অভিজ্ঞ সাকিব ও মাহমুদউল্লাহর বিকল্প নেই। তবে বিশ্বকাপে তাদের কাছে অধিনায়ক শান্তর বিশেষ কোন কিছু চাওয়ারও নেই। তিনি বলেন, ‘সাকিব ভাই, রিয়াদ ভাইয়ের কাছ থেকে বাড়তি বা অতিরিক্ত কিছু চাই না। উনারা যেভাবে পারফর্ম করছেন, যার ভূমিকা যেটি, তা করতে পারলে দল অবশ্যই লাভবান হবে। উনাদের যে অভিজ্ঞতা আছে, এটা যদি প্রতিটি ক্রিকেটারের মধ্যে ছড়িয়ে দেন, তাহলে আমাদের দলের যে ছোট ছোট জায়গাগুলিতে উন্নতির দরকার আছে, ওই জায়গাগুলোয় খুব ভালো অবস্থানে থাকব।’

কিছুদিন আগেই এক সংবাদ সম্মেলনে বিশ্বকাপ দল নিয়ে খুব বেশি প্রত্যাশা করতে বারণ করেছিলেন অধিনায়ক শান্ত। তবে গতকাল দেশ ছাড়ার আগে তার এমন বক্তব্যের যেমন ব্যাখ্যা দিয়েছেন তেমনি জানিয়েছেন এই আসর থেকে নিজের প্রত্যাশার কথাও। তিনি বলেন, আমার মনে হয় আমি যে কথাটা বলেছিলাম তারপরেও বাংলাদেশের সবাই প্রত্যাশা করবেই। আমি নিজেও প্রত্যাশা করি এবং আমাদের প্রত্যেকটা প্লেয়ার প্রত্যাশা করবে যে আমরা অনেক ভালো ক্রিকেট খেলব। আমরা যদি ছোট ছোট প্ল্যান নিয়ে আগাই যে আমরা কীভাবে গ্রুপ স্টেজটা পার করব তাহলে প্ল্যান করাটা সহজ হয়। আমরা যে গ্রুপে আছি খুব একটা যে দুর্বল গ্রুপ তা বলব না। আমরা যদি এটা পার করতে পারি তখন আবার আমরা আলাদাভাবে প্ল্যান করতে পারব। টি-টোয়েন্টিতে আমি বিশ্বাস করি ছোট দল বড় দল বলে কিছু নেই। নির্দিষ্ট দিনে যদি আমরা ভালো ক্রিকেট খেলতে পারি তাহলে যেকোনো দলকে হারানো সম্ভব।’

 

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।