ঢাকা১৯ মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
  1. ! Без рубрики
  2. Echt Geld Casino
  3. test2
  4. অপরাধ
  5. অর্থনীতি
  6. আন্তর্জাতিক
  7. আরো
  8. এক্সক্লুসিভ
  9. খেলাধুলা
  10. জাতীয়
  11. তথ্য প্রযুক্তি
  12. দেশজুড়ে
  13. প্রেস বিজ্ঞপ্তি
  14. বাণিজ্য
  15. বিনোদন

সিলেটে স্কুল শিক্ষার্থীদের সঙ্গে জ্যোতির ২ ঘণ্টা

admin
এপ্রিল ৩০, ২০২৪ ১১:৪৭ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

দৈ. কি.ডেস্ক : বাংলাদেশ মহিলা ক্রিকেট টিমের অধিনায়ক নিগার সুলতানা জ্যোতি। ক্রিকেট পাগল   সিলেটের মেয়েদের কাছে এ নামটি বিশেষভাবে পরিচিত। গতকাল সিলেটের স্কুলছাত্রীরা কাছে পেলেন  সেই জ্যোতিকে। কেউ তুললেন সেলফি, কেউ নিলেন অটোগ্রাফ। স্কুলের মেয়েদের সঙ্গে খেলেছেন তিনি। আর হঠাৎ করে স্কুলে উপস্থিতি মেয়েদের কাছে অনেক অনুপ্রেরণার বলে জানিয়েছেন শিক্ষার্থীরা। বাংলাদেশ মহিলা ক্রিকেট টিমের এ অধিনায়কের কাছ থেকে তারা মাঠে গিয়ে খেলা দেখার দাওয়াতও পেয়েছেন। এতে অভিভাবকরাও উচ্ছ্বসিত হয়েছেন। বাংলাদেশ ও ভারত মহিলা ক্রিকেট টিমের খেলোয়াড় বর্তমানে সিলেটে অবস্থান করছেন। দু’দেশের টি- টোয়েন্টি ক্রিকেট খেলা চলছে চা-বাগান ঘেরা সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে। গতকাল দুপুরে এক ফাঁকে দু’সহকর্মীকে নিয়ে সিলেটের তিনটি স্কুলে দু’ঘণ্টা কাটিয়ে গেলেন নিগার সুলতানা জ্যোতি।

সঙ্গে ছিলেন তার সতীর্থ খেলোয়াড় মারুফা ও ফাহিমা। এছাড়া বিসিবি’র উইনেস উইংয়ের হেড অব অপারেশনস ও বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক হাবিবুল বাশার সুমনও ছিলেন। সঙ্গ দেন সিলেট বিভাগীয় ক্রিকেট কমিটির সাধারণ সম্পাদক ফরহাদ কোরেশী।
সিলেটের আম্বরখানা গার্লস স্কুল এন্ড কলেজে পা দিতেই জ্যোতি সহ অন্য দুই খেলোয়াড়কে ঘিরে ধরে শিক্ষার্থীরা। অটোগ্রাফ নেয়ার হিড়িক পড়ে যায়। সেখানে শিক্ষার্থীদের অনেকেই অভিভাবক কিংবা শিক্ষকদের মোবাইল ফোনের মাধ্যমে সেলফিও তোলেন। এক ফাঁকে শিক্ষার্থীদের সঙ্গে খেলায়ও অংশ নেন জ্যোতি ও মারুফা। বিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থীর করা বলের মুখোমুখি হন জ্যোতি। আর মারুফা যখন বল করছিলেন তখন ব্যাটিংয়ে ছিল আরেক শিক্ষার্থী। এরপর সিলেটের ইংলিশ মিডিয়াম স্কুল আনন্দ নিকেতনে যান তারা। সেখানে শিক্ষার্থীদের প্রশ্নের মুখোমুখি হন নিগার সুলতানা জ্যোতি। প্রশ্ন ছিল- খেলার আগ্রহ কোথায় পেলেন? মাঠের প্রেশার কীভাবে নেন? ভালো খেলা যায় কীভাবে? জবাবে বাংলাদেশ মহিলা টিমের অধিনায়কের সহজ উত্তর- সব সময় হাসিমুখে সতীর্থদের সঙ্গ দেই। সবাই ভালো করলে আমিও ভালো খেলার অনুপ্রেরণা পাই। আনন্দ নিকেতনের পর সিলেটের ব্লুবার্ড স্কুলে যান। সেখানে শিক্ষার্থীদের অটোগ্রাফ দেন জ্যোতি। তিনটি বিদ্যালয় পরিদর্শনকালে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সিলেট আর্ন্তজাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে গিয়ে বাংলাদেশ ও ভারত ক্রিকেট দলের খেলা দেখার আমন্ত্রণ জানান। পরে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলার সময় বাংলাদেশ মহিলা টিমের অধিনায়ক জানান- স্কুলে যাওয়ার উদ্দেশ্য দু’টি। একটি হচ্ছে; স্কুলের শিক্ষার্থীদের স্টেডিয়ামে খেলা দেখতে উৎসাহিত করা। এছাড়া- ক্রিকেট সম্পর্কে তাদের অনুপ্রেরণা তৈরি করা। তিনি বলেন- মেয়েদের ক্রিকেটে উৎসাহিত করতে হলে স্কুল হচ্ছে বড় মাধ্যম। এর মাধ্যমে মেয়েরা ক্রিকেটে উৎসাহ পাবে, খেলতে আগ্রহী হবে। তারা মাঠে গেলে আরও আগ্রহ পাবে বলে জানান তিনি।

বিসিবি’র উইনেস উইংয়ের হেড অব অপারেশনস ও বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক হাবিবুল বাশার সুমন- মেয়েরা ক্রিকেটে ভালো করছে, সেটি স্কুলের মেয়েরা জানলো। এটা ভালো উদ্যোগ। পাশাপাশি আগ্রহও তৈরি হলো। তিনি বলেন- আমরা চাই মেয়েরা ক্রিকেটে আসুক। এতে আমাদের পাইপ লাইনও আরও বেশি শক্তিশালী হবে। সিলেট বিভাগীয় ক্রিকেট কমিটির সাধারণ সম্পাদক ফরহাদ কোরেশী জানিয়েছেন- বাংলাদেশ মহিলা টিমের অধিনায়ককে কাছে পেয়ে মেয়েরা উচ্ছ্বসিত ছিল। তারা অনেক কথা বলেছে। অটোগ্রাফ নিয়েছে। এতে করে উৎসাহিত হয়েছে স্কুলের মেয়েরা। সিলেট ব্লুবার্ড স্কুলের নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী অর্পিতা অমি জানিয়েছে- নিগার সুলতানাকে কাছে পেয়ে আমরা উচ্ছ্বসিত। তাদের সফলতার গল্প আমাদের জন্য অনুপ্রেরণা।

 

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।