ঢাকা১৫ জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
  1. ! Без рубрики
  2. Echt Geld Casino
  3. test2
  4. অপরাধ
  5. অর্থনীতি
  6. আন্তর্জাতিক
  7. আরো
  8. এক্সক্লুসিভ
  9. খেলাধুলা
  10. জাতীয়
  11. তথ্য প্রযুক্তি
  12. দেশজুড়ে
  13. প্রেস বিজ্ঞপ্তি
  14. বাণিজ্য
  15. বিনোদন

৩টি মেডিকেল থাকারও পর কেন ঢাকায় যেতে হয়: এমপি তৌফিকের প্রশ্ন

admin
মে ২৯, ২০২৪ ১০:১৯ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

দৈ. কি.ডেস্ক : কিশোরগঞ্জ-৪ (ইটনা-মিঠামইন-অষ্টগ্রাম) আসনের সংসদ সদস্য, সড়ক পরিবহণ ও সেতু মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি প্রকৌশলী রেজওয়ান আহাম্মদ তৌফিক বলেছেন, আমার কাছে অভিযোগ আসে ইদানিং ক্লিনিকগুলিতে ভুল চিকিৎসা হচ্ছে। আমরা যারা এ রিলেটেড কাজ করি তাদেরকে আরো সাবধান হতে হবে।

এমন অভিযোগও আছে, এনেস্থিসিয়া কোন ডাক্তার দেয় নি, ওয়ার্ড বয় দিয়েছে। এ ধরনের অভিযোগ যদি আরো আসে, আমরা সোচ্চার হবো। আমরা কাউকে ছাড় দিবো না।

মঙ্গলবার (২৮ মে) দুপুরে কিশোরগঞ্জের করিমগঞ্জে প্রেসিডেন্ট আবদুল হামিদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মেডিকেল বর্জ্য প্রক্রিয়াজাতকরণ বিষয়ক এক কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে রেজওয়ান আহাম্মদ তৌফিক এমপি এসব কথা বলেন।

রেজওয়ান আহাম্মদ তৌফিক এমপি বলেন, কিশোরগঞ্জে যারা চিকিৎসা করাতে আসে তারা অধিকাংশই গরীব মানুষ। চিকিৎসার নামে এসব গরীব মানুষের রক্ত চুষে খেতে হলে চিন্তা-ভাবনা করতে হবে।

আমাদের সৌভাগ্য এ জেলায় তিনটি মেডিকেল কলেজ আছে। কিন্তু তিনটি মেডিকেল কলেজ থাকার পরেও কেন আমাদের ঢাকা যেতে হয়? এরপরেও আমাদের রোগীদের কেন বাইরে যেতে হবে?

প্রেসিডেন্ট আবদুল হামিদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের অধ্যক্ষ ডা. আ. ন. ম নৌশাদ খানের সভাপতিত্বে কর্মশালায় বিশেষ অতিথি শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ডা. মো. হেলাল উদ্দিন, কিশোরগঞ্জ পৌরসভার মেয়র মাহমুদ পারভেজ, জেলা জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী মাহবুবুর রহমান এবং পরিবেশ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক মো. আব্দুল্লাহ আল মতিন। এতে মেডিকেল কলেজ ও বিভিন্ন ক্লিনিকের প্রতিনিধিরা অংশ নেন।

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।